Donate

Center for Bangladesh Studies is a not-for-profit think tank funded by your donations. our projects can not be sustained if we don’t have your support. in whatever capacity, you’re welcome to donate to us.

If you are in Bangladesh, you can donate to us via our bank account directly at
Account Name: Center for Bangladesh Studies (CBS).
Account Number: 126-110-25088
Dutch-Bangla Bank Limited, Elephant Road Branch, Dhaka.
SWIFT: DBBLBDDH
Branch Routing Number: 090261338

You may also get in touch with us at [cbsdhaka@gmail.com] to find out more.

সিবিএস কি?
বাংলাদেশ অধ্যয়ন কেন্দ্র ( Center for Bangladesh Studies- CBS) ট্রাষ্ট আইনে নিবন্ধিত একটা অলাভজনক, স্বেচ্ছাসেবী নির্ভর গবেষণা প্রতিষ্ঠান । বাংলাদেশ অধ্যয়ন কেন্দ্রের কর্মীরা স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে এই সংগঠনে কাজ করেন। সমাজের শুভার্থী মানুষ আর বন্ধু-সহযোগী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও উদ্যোগের সহযোগিতায় যোগার হয় কেন্দ্রের তহবিল।
২০১২ সালে বাংলাদেশ অধ্যয়ন কেন্দ্র কাজ শুরু করে। অপুরুষতান্ত্রিক ও সাম্যের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বাংলাদেশের সমাজ ও রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক বিকাশের জন্য বুদ্ধিবৃত্তিক সংগ্রামে যোগ দিয়েছে সিবিএস। বাংলাদেশের সমাজ- অর্থনীতি- প্রতিবেশ -রাজনীতি- ইতিহাস- সংস্কৃতি ইত্যাদি বিষয়ে নীতিনির্ধারণী গবেষণা , সামাজিক সংলাপ, প্রকাশনা, সামাজিক শিক্ষাসহ নানান উপায়ে সিবিএস কাজ করে যাচ্ছে।
কেন শিক্ষানবিস নেয়া হয়?
সিবিএস সব সময় সমাজের মানুষের সাথে যুক্ত থেকে কাজ করে। এই যুক্ত হবার একটি প্রক্রিয়া হিসেবে সিবিএস শিক্ষানবিস গবেষক ও সংগঠক নিয়োগ দেয়। কেন্দ্রের গবেষণা ও সামাজিক যোগাযোগ কাজে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষানবিসরা নিজেদের মানবিক বিকাশের পাশাপাশি সিবিএসকে সামনে এগিয়ে নেবার সুযোগ পায় এবং এর মাধ্যমে সমাজের কল্যানে ভূমিকা রাখতে পারে।
শিক্ষানবিস হবার যোগ্যতাঃ
  • রাজনীতি সচেতন হতে হবে।
  • অপুরুষতান্ত্রিক হতে হবে।
  • সমাজে চলমান শোষণ ও বৈষম্য নিয়ে জিজ্ঞাসা ও বোঝাপড়া থাকতে হবে।
  • প্রকৃতি-প্রতিবেশের প্রতি যত্নশীল হতে হবে।
  • সময় ও নিয়মানুবর্তী হতে হবে।
  • স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে কাজ করার মানসিকতা থাকতে হবে।
  • নতুন চিন্তা নিয়ে আগ্রহ থাকতে হবে।
  • বাংলা-ইংরেজী খুব ভালো লিখতে-পড়তে পারতে হবে।
বেতনঃ নাই। স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে কাজ শিখতে ও করতে হবে।
শিক্ষানবিস পদের প্রকারভেদঃ ১। জেষ্ঠ্য দীর্ঘমেয়াদী শিক্ষানবিস (Senior Long term Internship) ২। জেষ্ঠ্য স্বল্পমেয়াদী শিক্ষানবিস (Senior short term Internship) ৩। জুনিয়র শিক্ষানবিস (Junior Internship)
জেষ্ঠ্য দীর্ঘমেয়াদী শিক্ষানবিস (Senior Long term Internship) পদের যোগ্যতাঃ
· বয়সঃ ২০-২৮
· সময়ঃ ১২ মাস
· সপ্তাহে ন্যুনতম ১৫ কর্মঘন্টা কেন্দ্রে কাজ করতে হবে। একইসাথে কেন্দ্রের বিভিন্ন কার্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে সংযুক্ত থাকতে হবে।
জেষ্ঠ্য স্বল্পমেয়াদী শিক্ষানবিস (Senior short term Internship):
· বয়সঃ ১৯-২৪
· সময়ঃ ৬ মাস
· সপ্তাহে ৩০ কর্মঘন্টা (প্রয়োজনমাফিক শিথিলযোগ্য) কর্মঘন্টা কেন্দ্রে কাজ করতে হবে। একইসাথে কেন্দ্রের বিভিন্ন কার্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে সংযুক্ত থাকতে হবে।
জুনিয়র শিক্ষানবিস (Junior Internship) পদের যোগ্যতাঃ
· বয়সঃ ১৪-১৮
· সময়ঃ দুই মাস
· সপ্তাহে ন্যুনতম ৮ কর্মঘন্টা কেন্দ্রে কাজ করতে হবে। একইসাথে কেন্দ্রের বিভিন্ন কার্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে সংযুক্ত থাকতে হবে।
কাজঃ
গবেষণায় যুক্ততাঃ শিক্ষানবিসরা কেন্দ্রের চলমান গবেষণা কাজে যুক্ত থাকবে। কে কোন গবেষণায় সাহায্য করবে তা শিক্ষানবিসের অভিজ্ঞতা-আগ্রহ-দক্ষতা বিচার করে ও তার সাথে আলোচনা করে কেন্দ্র সিদ্ধান্ত নিবে।
কেন্দ্রের আড্ডা- পাঠচক্র-পাবলিক সেমিনার-সম্মেলনসহ বিভিন্ন সামাজিক সংলাপের অনুষ্ঠানে সহযোগি হিসাবে যুক্ততাঃ সিবিএস বিভিন্ন সময়ে সামাজিক সংলাপ আয়োজন করে। সে সব সংলাপ অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য মানুষজনের প্রয়োজন হয়। শিক্ষানবিসরাই সে সব অনুষ্ঠান আয়োজনে কাজ করবে।
কেন্দ্রের কার্যালয় রক্ষানাবেক্ষণে সাহায্যঃ কেন্দ্রের কার্যালয় পরিষ্কার, গোছানো, রান্না ও রান্নার সাহায্যসহ ইত্যাদি রক্ষানাবেক্ষণের কাজ কেন্দ্রের সবাই করে। শিক্ষানবিসরাও এই কাজে অংশ নিবে।
শিক্ষানবিসদের প্রাপ্তিঃ
  • গবেষণায় হাতে-খড়ি শিক্ষা
  • গবেষণা প্রকল্পে কাজ করার অভিজ্ঞতা
  • সিবিএস থেকে আয়োজন করা বিভিন্ন কর্মশালায় বিনামূল্যে অংশগ্রহনের সুযোগ
  • সার্টিফিকেট
  • সিবিএসে পরবর্তীতে কাজ করার সম্ভাবনা
  • গবেষণাপত্র প্রকাশের সুযোগ
  • কেন্দ্রের কার্যাবলীতে সংযুক্ত থাকার স্বীকৃতি
  • সরাসরি গবেষণা প্রকল্পে কাজ করার অভিজ্ঞতা
শিক্ষানবিস নীতিমালা-২০১৭
  • পর্যালোচনা বিষয়কঃ প্রথম মাসে শিক্ষনবিসদের পর্যালোচনা করা হবে। যদি কেন্দ্রের নিয়ম ও জীবনধারার সাথে শিক্ষানবিস মানিয়ে নিতে পারে তাহলে পরবর্তী তিন মাস কেন্দ্রের সাথে কাজ করবে। প্রতি মাস শেষে শিক্ষানবিসদের কাজ-আচরণের মূল্যায়ন করা হবে।
  • উপস্থিতি ও ছুটি বিষয়কঃ ইন্টার্নশিপের চার মাসে মোট উপস্থিতির ৮০% পূরণ না করলে সার্টিফিকেট দেয়া হবে না। পরীক্ষা, অসুস্থতা, আপনজনের মৃত্যু বা নায্য আন্দোলনে জড়িত হবার মতো গুরুত্বপূর্ণ কারণ না থাকলে ছুটিতে যাওয়া যাবে না এবং অবশ্যই ছুটির সময়গুলো পরবর্তীতে পূরণ করতে হবে।
  • সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যোগাযোগ বিষয়কঃ সিবিএসের কর্মীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সিবিএসের সকল পোস্ট প্রচার করাটা উৎসাহিত করা হয়। এছাড়াও নিজের ব্যক্তিগত ইচ্ছা থাকলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সিবিএসের শিক্ষানবিস হিসাবে পরিচয় দিতে পারবে। এ পরিচয় দিলে পুরুষতান্ত্রিকসহ বিভিন্ন বৈষম্যমূলক পোস্ট-শেয়ার দেয়া যাবে না।
  • সার্টিফিকেট পাবার শর্তঃ উপস্থিতির শর্ত পূরণের পাশাপাশি সকল শিক্ষানবিসকে একটি চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিতে হবে। প্রতিবেদনে চার মাসের অভিজ্ঞতা ও কাজের বর্ণনা থাকবে।
  • সমাজে পরিচয় দেয়া সংক্রান্তঃ সিবিএসের শিক্ষানবিসরা সমাজে নিজেদের সিবিএসের শিক্ষানবিস হিসাবে পরিচয় দিতে পারবে। কোথাও নিজের লেখা ছাপানোর সময়ে নিজেদের সিবিএসের শিক্ষানবিস গবেষক হিসাবে পরিচয় দিবে।
  • সিবিএস কার্যালয়ে আচরণ সংক্রান্তঃ সিবিএসের সকল কর্মীর মতো শিক্ষানবিসরাও “বাংলাদেশ অধ্যয়ন কেন্দ্র কর্মীদের আচরণ বিধি, ২০১৬” মেনে চলতে বাধ্য থাকবে। আচরণ বিধি নিচে দেয়া হলোঃ
বাংলাদেশ অধ্যয়ন কেন্দ্রের কর্মীদের আচরনবিধি, ২০১৬
১। ব্যক্তিগত, সামাজিক এবং কর্মপরিসরে অপুরুষতান্ত্রিক আচরণ করবো।
২। কর্মপরিসরে নিজের কাজ নিজে করার (সেলফ-হেল্প) নীতিতে কাজ করবো। নিজের কাজ কারো জন্য ফেলে রাখবো না বা চাপিয়ে দিব না।
৩। ব্যক্তিগত ও কর্মপরিসরের পরিচ্ছন্নতায় মনোযোগী থাকবো।
৪। সময় এবং নিয়মানুবর্তীতা রক্ষা করে চলবো।
৫। সংস্থার/ সংগঠনের সম্পদের ( কম্পিউটারসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতি, আসবাবপত্র, বই-দলিলাদি, বিভিন্ন তথ্যসহ যাবতীয় সম্পদ) সুরক্ষায় মনোযোগী থাকবো।
৬। কর্মপরিসরে ব্যক্তিগত সম্পর্ক/লিঙ্গ/জাতি/ধর্ম/শ্রেনী/বর্ণ পরিচয়ের ভিত্তিতে কোন বৈষম্য বা সুবিধা দেয়া-নেয়া করবো না।
৭। কর্মীদের পারস্পরিক সম্পর্কে বৈষম্য সৃষ্টিকারী বা বিঘ্ন সৃষ্টিকারী আচার-আচরণ কর্মস্থলে অনুমোদন করবো না। সহকর্মী এবং সংস্থার/ সংগঠনের বিষয়ে সহকর্মীদের সাথে কুৎসা বা পরচর্চা করবো না ও অনুমোদন করবো না।
৮। কর্মপরিসরে কোন সমস্যা, কাজের প্রক্রিয়ায় কোন সমস্যা, কর্মীদের সাথে সহকর্মীতার ক্ষেত্রে কোন সমস্যা, সংস্থার। সংগঠনের নিয়ম নীতি-বিধি-বিধান সংক্রান্ত কোন মত-দ্বিমত-পর্যবেক্ষন-অভিযোগ সবই যথাযথ প্রক্রিয়ায় সংগঠনকে জানাবো। এসব নিয়ে কুৎসা বা পরচর্চা করবো না ও অনুমোদন করবো না।
৯। সংগঠন/ সংস্থার কাজের প্রয়োজনীয় গোপনীয়তা সুরক্ষিত রাখবো।
১০। কর্মপরিসরে, সমাজে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবং রাষ্ট্রে সংস্থার/সংগঠনের নিরাপত্তা-শ্রদ্ধা-সম্মানের হানি ঘটায় বা প্রশ্নবিদ্ধ করে- এমন কোন কাজ/আচরণ নিজে করবো না বা কাউকে অনুমোদন করবো না।
  • শিক্ষানবিস পদ থেকে অব্যাহতি প্রসঙ্গেঃ উপরোক্ত শর্তপূরণ ও আচরণবিধি পালনে ব্যর্থ হলে কেন্দ্র সেই ব্যক্তিকে যে কোনো সময়ে শিক্ষানবিস পদ থেকে অব্যাহতি দিতে পারবে।